1. admin@somoyerbangla24.com : admin :
  2. manikpress076@gmail.com : নিজস্ব প্রতিবেদক: : নিজস্ব প্রতিবেদক:
রবিবার, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২১, ১২:৫১ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
বিক্রমপুর রক্তদান সংস্থার ২য় বর্ষপুর্তি উদযাপন লৌহজং উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহ্বায়ক কমিটি গঠন লৌহজংয়ে প্রাথমিক বিদ্যালয়ে মাস্ক, হ্যান্ড সেনিটাইজার ও হ্যান্ড ওয়াশ বিতরণ সর্ষের মধ্যে ভূত আছে কিনা খুঁজে দেখতে হবে: সেতুমন্ত্রী লৌহজংয়ে সৌরভ ছড়াল ‘নাইট কুইন’ ফুল স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রাজিয়া খলিলুর রহমান ফাউন্ডেশনের অক্সিজেন কনসেনট্রেশান মেশিন বিতরণ লৌহজংয়ে আগুনে পোড়া বস্তির ৪৪ পরিবারের পাশে উদয়ন ইউথ এসোসিয়েশন লৌহজংয়ে পূর্বশত্রুতার জেরে দুই ভাইকে কুপিয়ে জখম মুনিয়ার নতুন কল রেকর্ডে একাধিক প্রেম ও মদ্যপ যুবককে রাতে বাসায় ডাকাসহ নানা তথ্য ফাঁস লৌহজংয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে অক্সিজেন কনসেনট্রেশান মেশিন বিতরণ

লৌহজংয়ে সৌরভ ছড়াল ‘নাইট কুইন’ ফুল

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • সময় : বৃহস্পতিবার, ১২ আগস্ট, ২০২১
  • ২১৩ বার পঠিত
সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

মুন্সীগঞ্জের লৌহজং উপজেলার কুমারভোগে নাসির খানের বাড়ীতে ফুটেছিল দীর্ঘ প্রতীক্ষার প্রতিফলন (বর্ষার ফুল) নাইট কুইন। বুধবার (১১ আগস্ট) দিবাগত রাতে নাইট কুইন নামক ফুলটি ফুটেছিল (পুষ্পপ্রেমী) নাসির খানের আঙিনায়। ফুটতে দেখে নাসির খান তার পরিবার ও এলাকাবাসী আনন্দে আত্মহারা। তাদের ফুলের স্পর্শে প্রফুল্ল মন, খুঁজে পায় স্নিগ্ধতা।

 

নাসির খান জানান, ধৈর্য,পরিশ্রম এবং ৫বছর অপেক্ষার পরই নাইট কুইন ফুল ফোটা দেখার সৌভাগ্য হয়েছে। ফুল ভালোবাসে না এমন মানুষ হয়তো খুঁজে পাওয়া যাবে না। আর সেই ভালোবাসা কতটা গভীর তা উপলব্ধি করা যায় যখন মানুষ ফুলের সংস্পর্শে আসে। তার বন্ধু আজিম তাকে নাইট কুইনের তিন বছর বয়সের গাছটি তাকে উপহার দেন। এবং সে গাছটি লাগিয়ে দীর্ঘ দুই বছর পরিচর্যার পর রাতে বাড়িতে নাইট কুইন ফুল ফুটেছে। বন্ধু আজিম তাকে এই গাছটি উপহার দেয়ার জন্য বন্ধুর প্রতি তিনি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। রাতে ফুলটি একনজর দেখতে উৎফুল্ল জনতা ভিড় করেন অনেকে ক্যামেরায় বন্দি করেন।

জানা যায়, রানীর মতো সৌন্দর্য নিয়ে রাতের গভীরে যে অপূর্ব সাদা ফুল অসাধারন মিষ্টি সুবাস ছড়িয়ে ফোটে তার নাম নাইট কুইন। রাত বেড়ে চলার সঙ্গে সঙ্গে কলি থেকে একটি একটি করে পাপড়ি মেলতে থাকে। সে সঙ্গে পাল্লা দিয়ে ছড়াতে থাকে মৃদু অথচ মন কেড়ে নেয়া সুগন্ধ।
নাইট কুইন একটি দুর্লভ ফুল। অনেক সাধনা করে, অনেক অপেক্ষার প্রহর গুনে ফোটাতে হয় নাইট কুইন। কিন্তু তাও বেশিক্ষণ স্থায়ী হয় না। যে রাতে ফুটে সে রাতেই ঝরে পড়ে।

কুইন অর্থ রানী, আর সেই রানীর মতোই আভিজাত্যের সৌন্দর্যমন্ডিত রুপ ও আবেশ ছড়িয়ে রাতের অতলে যে চমৎকার শুভ্রময় সাদা রংয়ের ফুলটি, কেমন চেনা চেনা মৃদু মিষ্টিময় সুবাস নিয়ে প্রস্ফুটিত হয় তার নামই হচ্ছে ‘নাইট কুইন’।
রাত গভীরতার সাথে সদ্য কলি থেকে একটি করে পাপড়ি ফুলটি থেকে বেরোতে থাকে, সঙ্গে ছড়াতে থাকে মৃদু অথচ মন কেড়ে নেয়া সুগন্ধ। ফুল ও প্রকৃতিপ্রেমী মানুষ মাত্রই এই ‘নাইট কুইন’ ফুলটির সৌন্দর্য, সুগন্ধ ও বৈচিত্রময় এক রাতের ব্যাতিক্রমী জীবনকাল নিয়ে ফুল ফোটা থেকে ঝরে পড়া পর্যন্ত সময়কালকে দেখতে এবং উপভোগ করার মতো অভিজ্ঞতার জন্য অনেক কিছুর বিনিময়েও অপেক্ষায় থাকে।


এই ‘নাইট কুইন’ ফুলটি বর্তমানকালে অতি দূর্লভ না বলা গেলেও বলা যায় দূর্লভও বটে। অনেক ধৈর্য, পরিশ্রম এবং অপেক্ষার পরই নাইট কুইন ফুল ফোটা দেখার সৌভাগ্য হয় তাও আবাে বেশিক্ষণের জন্য না। যে রাতে ফুলটি ফুটলো আবার রাতটি শেষের সাথেই সে ঝরে পড়ে। ফুলটি দেখতে যেমন সুন্দর তেমনি গন্ধেও অতুলনীয়। সাদা রং এর ফুলের ভেতর ঘিয়ে রং এর আবরণ ও সুমিষ্ট গন্ধ নাইট কুইনকে দিয়েছে রাজকীয় রানীর সরল কিন্তু অমোঘ অভিব্যক্তি। সর্বোপরি, এইসব কারনগুলোর জন্যই ‘নাইট কুইন’ ফুলকে বলা হয় – রাতের রাণী।

উদ্ভিদ তাত্ত্বিক নাম : Epiphyllum Oxypetalum। ইংরেজিতে Dutchman’s Pipe ও Queen of The Night নামেও পরিচিত। ইতিহাসে জানা যায়, বিরল ক্যাকটাস জাতীয় এ ফুলটির আদি নিবাস মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের দক্ষিণাঞ্চল এবং মেক্সিকো। এখন অবশ্য বাংলাদেশের অনেক পুষ্পপ্রেমীর বাড়িতে এ ফুলের গাছটি শোভা পায়।
এই ফুলের বৈশিষ্ট অন্যান্য যেকোনো ফুলের তুলনায় একটু আলাদা। বছরের মাত্র একদিনে এবং রাতের কোনো এক সময় ফোটাই এর স্বভাবগত বৈশিষ্ট্য। যার জন্য ফুলটিকে সচরাচর প্রত্যক্ষ করা সহজ নয়। নিজেকে সে আত্মপ্রকাশ ও বিকশিত করে রাতে এবং রাতশেষে আলো আসার আগেই সে ঝরে পড়ে। তাছাড়া চারা থেকে ফুলটি ফোটার সময় পর্যন্ত গাছটি তিন থেকে চার বছরেরও বেশী সময় নেয়। বাংলাদেশে সাধারণত বর্ষাকালে ফুলটি ফোটে। নাইট কুইন’ ফুলের আর একটি অদ্ভুত বৈশিষ্ট্য হলো এ ফুলের গাছ পাথরকুচি গাছের মতো পাতা থেকে অঙ্কুরিত হয়। একটি পাতা নরম মাটিতে রেখে দিলে ধীরে ধীরে সে পাতা থেকে অঙ্কুর বের হয় এবং পরে তা গাছে পরিণত হয়। একটি পাতা থেকে একাধিক গাছ জন্মাতে পারে। সেই পাতা থেকেই প্রস্ফুটিত হয় অসাধারণ ‘নাইট কুইন’ ফুল।
ফুল ফোটার লক্ষনঃ প্রথমে পাতার যে কোনো দিকে ছোট একটি গুটির মতো বের হয়। এই গুটি আস্তে আস্তে বড় হয়। ১৪ থেকে ১৫ দিনের মধ্যে সেই গুটি কলিতে রূপান্তরিত হয়। আর কলি পুষ্ট হওয়ার পর যে রাতে ফুল ফুটবে সেদিন বিকালেই কলিটি অদ্ভুত সুন্দর সাজে সজ্জিত হয়ে ওঠে। তখন এর দিকে তাকালে খুব সহজেই বোঝা যায় রাতের রাণী আসছে। পৃথিবীতে রাতের অন্ধকার যখন ছেয়ে যায়, তখন আস্তে আস্তে পাপড়ি মেলতে শুরু করে নাইট কুইনের কলি। রাতের বাড়ার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে একটি দুটি করে পাপড়ি মেলতে থাকে। সেই সঙ্গে মিষ্টি এক ধরনের গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। এ গন্ধে তীব্রতা না থাকলেও আছে এক ধরনের অদ্ভুত মাদকতা, যা যে কোনো মানুষকে মোহিত করতে পারে অনায়াসে। পরিপূর্ণ অন্ধকার যখন রাতকে আনন্দিত করে নাইট কুইন তখন অন্ধকারের বুক চিরে নিজেকে সম্পূর্ণভাবে মেলে ধরে। এ যেন – রাত যত বাড়তে থাকে তার রূপ ততই খুলতে থাকে! পূর্ব আকাশে আলোকছটা দেখা যাওয়ার কিছুক্ষণ আগে মৃত্যুর জন্য তৈরী হয়ে যায় ‘নাইট কুইন’। কারণ এই রাতের রানী ফুলটি যে দিনের আলো সইতে পারে না।


সংবাদটি শেয়ার করুন:
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  
  •  

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এ জাতীয় আরও খবর

ফেসবুকে আমরা

© All rights reserved © ২০২১ দেশের কথা
Theme Customized BY Theme Park BD