1. admin@desherkatha.com : admin :
  2. manikpress076@gmail.com : দেশের কথা : দেশের কথা
শুক্রবার, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০২:২১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
লৌহজংয়ে প্রাণিসম্পদ সেবা সপ্তাহ ও প্রদর্শনীর উদ্বোধন ঝড় বৃষ্টি ঠেলে বিএম শোয়েবের নির্বাচনী জনসভায় জনসমুদ্র লৌহজংয়ে গাঁওদিয়া মারধর ঘটনা মামলায় গ্রেফতার এক বিএম শোয়েবের সমর্থনে অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের সভা অগ্রসর বিক্রমপুর ফাউন্ডেশনের ২৫ বছর পূর্তি উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা সৌদি থেকে ঈদের শুভেচ্ছা জানালেন গাঁওদিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম লৌহজংয়ে শ্রমিক লীগের ইফতার ও দোয়া মাহফিল নির্বাচনের সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টিতে সাংবাদিকদের সহযোগিতা চাইলেন বিএম শোয়েব শহীদ ও যুদ্ধাহত বীর মুক্তিযোদ্ধা পরিবারকে সংবর্ধনা লৌহজংয়ের মিথ্যা সংবাদ প্রকাশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সভা

নীল পুনম প্রজাপতি

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • প্রকাশের সময় : সোমবার, ২ অক্টোবর, ২০২৩
  • ১৫৩ বার পঠিত

২০১০ সালের ১৭ এপ্রিল ময়মনসিংহস্থ বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বাকৃবি) বোটানিক্যাল গার্ডেনে ঘুরে বেড়াচ্ছিলাম। ছাত্রজীবনের বহু স্মৃতিই মনে পড়ছিল। প্রায় শুক্রবারই বাকৃবি বিজ্ঞান ক্লাব ও ন্যাচার স্টাডি ক্লাবের সদস্যদের নিয়ে এই বোটনিক্যাল গার্ডেনে ঘুরেছি, বার্ডিং করেছি ও নতুনদের পাখি চিনিয়েছি। ফুল-পাখি-প্রজাপতি নিয়ে কতই না সময় কাটিয়েছি।
তাই বোটানিক্যাল গার্ডেনের চিরচেনা পথে হাঁটতে হাঁটতে নস্টালজিক হয়ে যাচ্ছিলাম। পুরোনো সব স্মৃতি একে একে ঝেঁকে ধরছিল যেন আমাকে! হঠাৎই চোখের সামনে অতি চেনা একজনের আবির্ভাবে স্মৃতির জগৎ থেকে বাস্তবে ফিরে এলাম। সঙ্গে ক্যামেরা ছিল, কাজেই পুরুষ পতঙ্গটিকে দেখে ক্লিক করতে ভুললাম না। কিন্তু আশপাশে স্ত্রীটির দেখা পেলাম না।

তবে একই বছর ২৯ আগস্ট আমার বর্তমান চাকরিস্থল বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের (বশেমুরকৃবি) ভেটেরিনারি মেডিসিন অ্যান্ড অ্যানিমেল সায়েন্স অনুষদের পাশের ঝোপে স্ত্রীটির দেখা পেলাম। সর্বশেষ প্রজাপতিটিকে দেখলাম রাঙামাটির সাজেকে গত ১৮ সেপ্টেম্বর।
এতক্ষণ যাদের কথা বললাম তারা প্রকৃতির অনিন্দ্য সুন্দর সৃষ্টি পতঙ্গ নীল পুনম প্রজাপতি। ধনুক বা জামুই (পশ্চিমবঙ্গ) নামেও পরিচিত। ইংরেজি নাম Great Egg Fly. Nymphalidae পরিবারভুক্ত এই প্রজাপতির বৈজ্ঞানিক নাম Hypolimnas bolina। বাংলাদেশ ছাড়াও নেপাল, ভারত, শ্রীলঙ্কা, পাকিস্তান, মালয়েশিয়া, ইন্দোনেশিয়া, থাইল্যান্ড, তাইওয়ান, অস্ট্রেলিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় দ্বীপাঞ্চলে এদের দেখা যায়।

নীল পুনম মাঝারি থেকে বড় আকারের প্রজাপতি। প্রসারিত অবস্থায় ডানার দৈর্ঘ্য ৭০ থেকে ১১০ মিলিমিটার। এই প্রজাতির পুরুষ ও স্ত্রীর আকার-আকৃতি ও বর্ণে বেশ পার্থক্য দেখা যায়। পুরুষ প্রজাপতির ওপরের দিক কালচে রামধনু রঙের। প্রতিটি ডানার মাঝখানে একটি করে ডিম্বাকৃতির সাদা ছোপ, যার কিনারা থেকে নীল রঙের দ্যুতি বের হয় যেন!। সামনের ডানায় একসারি ছোট সাদা চক্র বা বৃত্ত রয়েছে। অন্যদিকে, স্ত্রী প্রজাপতি আকারে বেশ বড় হয়। স্ত্রীর ডানা ও দেহের রঙ গাঢ় বাদামি। এদের দুই ডানায় ছোট, অস্বচ্ছ হলদে বা সাদা রঙের দাগ থাকে। ডানার নিচের দিকের রঙ বাদামি এবং তাতে সাদা রঙের ডোরা বা ব্যান্ড দেখা যায়। পুরুষ-স্ত্রী উভয়েরই সামনের ডানার গোড়ার দিক লালচে বর্ণের।

বাংলাদেশের প্রায় সর্বত্রই এদের দেখা মেলে। তবে পাতাঝরা বন, ঘন ও স্যাঁতসেঁতে ঝোপ-জঙ্গল, বনের কিনারা, রাস্তার পাশ, মানুষের আবাস এলাকার আশপাশের বাগান ইত্যাদি বেশি পছন্দ করে। কিন্তু চিরসবুজ ও ঘাসবন এদের তেমন একটা পছন্দ নয়। এরা লম্বা শুঁড়টি দিয়ে ফুলের রস টেনে নেওয়ার সময় ডানা অর্ধ-খোলা অবস্থায় রাখে।

স্ত্রী নীল পুনম প্রজাপতি উপযুক্ত গাছের পাতার নিচের দিকে পাতাপ্রতি ৩ থেকে ৬টি করে ডিম পাড়ে। ফ্যাকাশে ও কাঁচের মতো স্বচ্ছ সবুজ ডিমগুলো দেখতে গম্বুজের মতো। স্ত্রী অত্যন্ত সন্তানবৎসল; ডিম ও শূককীটের (Catterpiller) প্রতি বেশ যত্ন নেয়। এদের ডিম ও শূককীট পিঁপড়ার আক্রমণের শিকার হতে পারে। সে কারণেই স্ত্রী প্রজাপতিকে সাবধানতার সঙ্গে উপযুক্ত গাছ খুঁজতে হয়। স্ত্রী যে পাতায় ডিম পাড়ে সে পাতাটিকে সব সময় পাহারা দিয়ে রাখে। সন্তানের প্রতি মায়ের ভালোবাসার এমন উদাহরণ অন্যান্য প্রজাতির প্রজাপতির মধ্যে তেমন একটা দেখা যায় না।

ডিম ফুটে শূককীট বের হতে প্রায় চার দিন লাগে। শূককীটগুলোর দেহ কালো ও মাথা কমলা। পুরো দেহ কালচে-কমলা কাঁটায় মোড়া থাকে। মাথায় রয়েছে একজোড়া কালো শিং। এরা বেশ কয়েকবার দেহের চামড়া খসিয়ে বা মল্টিং করে মূককীটে (Pupa) পরিণত হয়। মূককীটের রঙ বাদামি, ডানা যেখানে থাকে সে অংশটা ধূসর। মূককীটের দেহের ওপরটা খসখসে। ৭-৮ দিন পর পিউপা কেটে পূর্ণবয়স্ক প্রজাপতি বের হয়ে আসে। পূর্ণবয়স্ক প্রজাপতি মাত্র দুই সপ্তাহ বাঁচতে পারে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

এই জাতীয় আরও খবর